আজ রবিবার| ৯ই আগস্ট, ২০২০ ইং| ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
আজ রবিবার | ৯ই আগস্ট, ২০২০ ইং

শিবগঞ্জে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশু হাটে কেনাবেচা

শনিবার, ২৫ জুলাই ২০২০ | ৭:৩৮ পূর্বাহ্ণ | 5 বার

শিবগঞ্জে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশু হাটে কেনাবেচা

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার ১৪টি গবাদি পশুর হাট স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে গরু কেনাবেচা। তর্ত্তিপুর পশুর হাট ইজারাদার আবদুল মোবিন ও মনাকষা পশুর হাট ইজারাদার ডালিম মেম্বার জানান, পশুর হাট গুলোতে প্রচুর পরিমাণে স্বদেশী গরু আমদানি হলেও ক্রেতা সংখ্যা কম থাকায় গরু বিক্রি কম হচ্ছে না।

গত বছর কোরবানির ঈদের পূর্বে ৩-৪ সপ্তাহে পশুর হাটে ব্যাপক হারে কেনা বেচা হয়েছে। কিন্তু এবার বৈশিক মহামারির করোনার প্রার্দুরভাবের কারণে শিবগঞ্জের বিভিন্ন পশুর হাট গুলোতে বাহির থেকে গরুর ব্যাপারিরা আসছেন না। এদিকে স্থানীয়ভাবে গ্রামের আর্থিক অবস্থা ভালো না থাকায় কোরবানি দেয়ার ইচ্ছা থাকলেও সম্ভব হচ্ছে না গরু কেনা বলে জানান হাট ইজারাদার। তবে খাসেরহাট, আড়গাড়াহাট, রাণীহাট, চককীর্ত্তি হাটের ইজারাদারা জানান, গত এক সপ্তাহ ধরে ভারি বর্ষণ ও বৈরী আবহাওয়ার কারণে দেশের দুর-দুরান্ত থেকে গরু কেনার জন্য ব্যাপারিরা আসতে পারছেন না।

ফলে আবহাওয়া ভালো হলে কোরবানির পূর্ব মুহুর্তে গরু আমদানির পাশাপাশি বিক্রয় বেশি হবার সম্ভাবনা রয়েছে। উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে বড় গবাদি পশুর হাট পৌর এলাকার তর্ত্তিপুরে অবস্থিত। প্রতি শনিবার ও মঙ্গলবার এ হাটে সীমান্ত এলাকার ৪-৫টি ইউনিয়ন থেকে প্রায় ৩-৪ হাজার কোরবানির গরু আমদানি হয়ে থাকে। বিনোদপুর, দুলর্ভপুর ও শাহাবাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরা জানিয়েছেন- এবার উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বিভিন্ন বাড়িতে ১-৪টি পর্যন্ত গবাদি পশু পালন করা হয়েছে। যার ফলে কোরবানি দেয়ার জন্য কোন বিদেশী গরুর প্রয়োজন হবে না। উল্লেখ্য, শিবগঞ্জ থানার পুলিশ গত মঙ্গলবার ১৪টি গবাদি পশু হাটের ইজারাদারদের সাথে মতবিনিময় করেছেন।

এতে ১৪টি গবাদি পশু হাটের ইজারাদাররা অংশ নেন। ইজারাদারদের উদ্দেশ্যে বর্তমান প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস নিয়ে বক্তব্য রাখেন ওসি শামসুল আলম শাহ্। মতবিনিময় বলা হয় প্রতিটি গবাদি পশু হাটে সরকারি বিধি নিষেধ মেনেই ক্রয়-বিক্রয় করতে হবে। ইজারাদারসহ ক্রেতা বিক্রেতাকে বাধ্যতামুলকভাবে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। এছাড়াও সামাজিক দূরতের ক্ষেত্রেও সকল ক্রেতা ও বিক্রেতাকে সজাগ থাকার জন্য ইজারাদারের অফিস কক্ষ থেকে ঘন ঘন মাইকিং করতে হবে। সার্বিকভাবে তদারকির জন্য প্রত্যেকটি গবাদি পশু হাটে পুলিশি টহল থাকবে। সরকারি বিধিবিধান না মেনে চললে ইজারাদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন-Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Print this page
Print

সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  
ফেইসবুক পাতা

error: Content is protected !!