আজ বুধবার| ১২ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ| ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
আজ বুধবার | ১২ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

পঞ্চম উপজেলা হিসাবে ভালুকা ভ্রমণ রুবেলের!

শুক্রবার, ৩১ জুলাই ২০২০ | ১২:৫২ পূর্বাহ্ণ | 58 বার

পঞ্চম উপজেলা হিসাবে ভালুকা ভ্রমণ রুবেলের!

ভালুকা (ময়মনসিংহ)  প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার সদর ইউনিয়নের চর বামনের চর গ্রামের সাকিব

আল হাসান রুবেল ৫ম উপজেলা হিসাবে ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলা ভ্রমণ করেছেন। আজ বৃহস্পতিবার ( ৩০ শে জুলাই ২০২০) দুপুরে ভালুকা এসে পৌঁছান রুবেল। স্থানীয় একটি হোটেল থেকে দুপুরের খাবার খেয়ে প্রথমে রওনা হোন মল্লিকবাড়ী ব্রিজে। পর্যায়ক্রমে ঘুরে দেখেন- হবিরবাড়ী ইউনিয়ন, ভরাডোবা ইউনিয়ন,  উথুরা ইউনিয়ন,  ডাকাতিয়া ইউনিয়ন, সুতিয়া নদী, খিরু নদী, ভালুকা সরকারী কলেজ, ভালুকা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, ভালুকা মডেল থানা, ও ভালুকা উপজেলা পরিষদ।

সাকিব আল হাসান রুবেল বলেন- ভালুকা বাংলাদেশের ময়মনসিংহ জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা। এটি বাংলাদেশের প্রথম মডেল থানা। এই উপজেলার  নামকরণ বিষয়ে বেশ কয়েকটি জনশ্রুতি প্রচলিত রয়েছে।

এই জনশ্রুতি গুলোর মধ্যে তিনটি জনশ্রুতিই সবচেয়ে বেশি উল্লেখযোগ্য। এই তিনটি জনশ্রুতির একটি হলো ব্রিটিশ শাসন যখন বাংলাদেশে পাকাপোক্তভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়, তখন নীলকর সাহেবগণ তাঁদের নিজস্বার্থ চরিতার্থ করার জন্যে বিভিন্ন জায়গায় নীলকুঠি স্থাপন করেন। নীলকুঠি স্থাপনের পর নীলকর সাহেবগণ মাঝে মধ্যে শিকার করতে বের হতেন।

শিকার করতে বের হয়ে নীলকর সাহেবগণ বনে-জঙ্গলে বাঘ, ভাল্লুক দেখতে পেতেন। আর এ কারণেই নীলকর সাহেবদের কাছে এই এলাকা ভল্লুক এলাকা হিসেবে পরিচিতি পেয়ে যায়। পরবর্তী সময়ে ভল্লুক এর অপভ্রংশ হিসেবে উৎপত্তি ঘটে ভালুকা নামের। দ্বিতীয় জনশ্রুতি হচ্ছে, বর্তমান ভালুকা বাজারের দু’টি অংশ রয়েছে। এর একটি হচ্ছে পূর্ব অংশ, অন্যটি হচ্ছে পশ্চিমাংশ। পূর্ববাজারসহ গোটা ভালুকাই ছিলো ভাওয়াল পরগণার অন্তর্ভুক্ত।

অবশ্য ভালুকার পশ্চিম বাজার ছিলো মুক্তাগাছার জমিদার মহারাজ শশীকান্তের জমিদারির আওতাভূক্ত। সেখানে জঙ্গলের ভেতর একটি মাজার ছিলো। এর খাদেম ছিলেন ওয়াহেদ আলী ফকির ও তৈয়বজান বিবির পিতা বুচাই ফকির। মরহুম খান সাহেব আবদুল্লাহ চৌধুরীর নির্দেশে তাঁর সমসাময়িক বেশ ক’জন বিশ্বস্ত লোক মনসুর আলী খান, জয়েদ আলী ও জয়েদ খানের সহযোগিতায় ভালুকা বাজার সৃষ্টি হয়। পূর্ব বাজারে একটি কাঁচারী ঘর ছিলো। সেখানে ভাওয়াল রাজার নামে খাজনা আদায় করা হতো। ভাওয়ালের কাঁচারীর নাম হয়ে ছিলো ভাওয়ালের নাম অনুসারেই।

পরবর্তী সময় বাজারসহ গ্রামের নামকরণ হয় ভালুকা। ১৯১৭ সালে গফরগাঁও থানাকে বিভক্ত করে ভালুকা থানা প্রতিষ্ঠিত হয়। তৃতীয় জনশ্রুতিটি হচ্ছে ভালুক চাঁদ মন্ডল ছিলেন আদিবাসী কোচ বংশের সর্দার। ভালুক চাঁদ এর নামানুসারে ভালুকা নামের সৃষ্টি হয়েছে। উথুরা ইউনিয়নে ও বর্তমান ডাকাতিয়া অঞ্চলে কোচ বংশের লোকজনের অধিবাস এখনো রয়েছে। উল্লেখ করা যেতে পারে যে, বর্তমানে কোচ বংশের লোকজন বর্মণ পদবী ‘ধারণ করেছে। সাকিব আল হাসান রুবেল ইতিমধ্যে কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া, নিকলী, কটিয়াদি ও গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলা ভ্রমণ করেছেন। জনসাধারণের জন্য ( ০১৯১১-৪১৯৬৭৫) একটি হটলাইন নাম্বার ও চালু করেছেন তিনি।

শেয়ার করুন-Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Print this page
Print

সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  
ফেইসবুক পাতা

error: Content is protected !!