ঢাকা, শুক্রবার, ২রা অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, শুক্রবার, ২রা অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শ্রীনগরে সবজির বাজারে আগুন!

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: করোনা ও বন্যায় কৃষিতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এরই প্রভাব পরেছে এখন সব ধরনের সবজির বাজারে। সীমাহীন সবজির বাজারের লাগাম যেন কোনও ভাবেই টেনে ধরা যাচ্ছেনা।

বর্তমান বাজারে খুচরায় আলু বিক্রি করা হচ্ছে ৩০-৩৫ টাকা, পিয়াজ ৩৫-৪০, পটল ৫০-৬০, ধূনদুল ৫০-৬০, কাঁচা মরিচ ২০০-২৫০, শশা ৪০-৫০, কচুলতি ৪০-৫০ টাকা, চিকিংগা ৫০-৬০, করলা ৭০-৮০ টাকাসহ বিভিন্ন মৌসুমী সব সবজির দাম যেন আকাশচুম্বি। দিনদিন নি¤œআয়ের মানুষের ক্রয় ক্ষতা নাগালের বাহিরে চলে যাচ্ছে এসব সবজি। আর এর কারণে হিসেবে ক্রেতা-বিক্রিতারা দায়ি করছেন বন্যা ও অতিবৃষ্টিকে।

উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজার ঘুরে এমনটাই জানা গেছে। শুক্রবার পর্যন্ত সরেজমিনে দেখা গেছে, প্লাবিত এলাকায় বন্যার পানি নামতে শুরু করছে। জাগতে শুরু করছে অনেক আবাদি সবজির বাগান। বন্যায় বিধ্বস্ত সবজির বাগানগুলো পুনরায় চাষাবাদের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। শ্রীনগরে বন্যায় কৃষিতে ব্যাপক লোকসানের মুখে পরেছেন এখানকার কৃষক।

স্থানীয় হাটগুলোতে দেখা গেছে, সবজির দাম তুলনামূলকভাবে কিছুটা বেশী। বর্তমান বাজারে প্রায় সব ধরনের সবজির দামই কেজি প্রতি ৫০ টাকার ওপরে। অপরদিকে লক্ষ্য করা গেছে, উপজেলার কোনও কোনও বাজারে/মহল্লায় এসব সবজি কেজিতে ১০/১৫ টাকা অতিরিক্ত দামে বিক্রি করা হচ্ছে। শ্রীনগর বাজার, বাঘড়া বাজার, ষোলঘর বাজার, ভাগ্যকুল বাজার, সিংপাড়া বাজার, বিবন্দী বাজার, বাড়ৈগাঁও বাজার, ষোলঘর বাজারসহ বিভিন্ন বাজারে সবজি বিক্রেতারা জানান, বন্যায় সবজির ক্ষয়ক্ষতির পরিমান বেশী হওয়ায় পাইকারী বাজারেও এর দাম বেশী। বাধ্য হয়েই বেশী দামে সবজি বিক্রি করছেন তারা। ক্রেতারা বলেন, সীমাহীন সবজির বাজারে দাম বেড়েই চলছে।

গত কয়েকদিন আগেও এর দাম কিছুটা কম ছিল। এখানে দিনদিন প্রায় সব সবজির দামই বাড়ছে! ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে চলে যাচ্ছে জানান তারা। স্থানীয় কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, আগস্টের এক পরিসংখ্যানে এখানে বন্যায় নিমজ্জিত পুষ্টি বাগানের (সবজি) ক্ষয়ক্ষতির পরিমান ১৩২টি। এতে করে প্রায় ১০৫ হেক্টর সবজির আবাদি জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। উপজেলায় বন্যায় সম্ভাব্য ক্ষতিগ্রস্ত চাষীর সংখ্যা ধরা হয়েছে ১৬৮২ জন।

 


error: Content is protected !!