ঢাকা, সোমবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, সোমবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

চলচ্চিত্রে ওমর সানীর ৩০ বছর পূর্তি

চিত্রনায়ক ওমর সানী তার চলচ্চিত্রের কর্মজীবনের ৩০ বছর পূর্ণ করলেন আজ। তিনি আজ তার ফেসবুক আইডিতে লিখেছেন “… কৃতজ্ঞতা আমার সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর কাছে,,, প্রযোজক, পরিচালক, বিনোদন সাংবাদিক এবং চলচ্চিত্রের সবার কাছে আর আমার পরিবারের কাছে আমি কৃতজ্ঞ, দর্শকরা আমাকে বানিয়েছেন স্টার সুপারস্টার… সবার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি… দোয়া চাই সবার… আমার ওস্তাদ শেখ নজরুল ইসলাম, আর নায়িকা মুক্তি… লাভ ইউ”

ওমর সানীর জন্য শুভ কামনা ও ৩০ বছর পূর্তিতে অভিনন্দন। Omar Sani Omar Sani Omar Sani Omar Sani

মোহাম্মদ ওমর সানী (জন্ম ৬ মে ১৯৬৯), ওমর সানী হিসাবেই সবচেয়ে বেশি পরিচিত, হচ্ছেন একজন বাংলাদেশী চলচ্চিত্র অভিনেতা।
১৯৯২ সালে নুর হোসেন বলাইর এই নিয়ে সংসার চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তার চলচ্চিত্র শিল্পে অভিষেক ঘটে। তবে তার প্রথম ছবি ‘চাঁদের আলো’ মুক্তি পায় ১৯৯৩ সালে। ১৯৯৪ সালে দিলীপ বিশ্বাসের দোলা চলচ্চিত্রে প্রথমবারের মতো মৌসুমীর বিপরীতে অভিনয় করেন তিনি।

পরবর্তীতে ২০০৫ সালে শাকিব খান অভিনীত ওরা দালাল চলচ্চিত্রে প্রথমবারের মতো খলনায়কের ভূমিকায় অভিনয় করেন। খলনায়ক হিসেবেও ওমর সানী সফলতা পান।তার উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রের মধ্যে চাঁদের আলো, কুলি ও দোলা অন্যতম

১৯৯৬ সালের ২ আগস্ট ওমর সানী জনপ্রিয় অভিনেত্রী মৌসুমীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এই দম্পতির ফারদিন এহসান স্বাধীন নামের এক ছেলে ও ফাইজা নামে এক মেয়ে রয়েছে।
ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা ওমর সানী। দেখতে দেখতে চলচ্চিত্রে তাঁর পথচলার ৩০ বছর পূর্ণ করলো। নব্বই দশকের শুরুতে চলচ্চিত্রে তার আগমন ঘটে একজন রোমান্টিক হিরো হয়ে।

অভিনয় করেছেন ভিলেন হিসেবেও। ভিলেন হিসেবেও জনপ্রিয়তা পেয়েছেন ওমর সানী। বর্তমানে চলচ্চিত্রে নানা সংকট চলছে। আগের মতো নেই সিনেমার ব্যস্ততা। আরও অনেকের মতো ওমর সানীও তাই অনিয়মিত হয়ে গেছেন ঢালিউডে। তবে নিজেকে তিনি জড়িয়ে রেখেছেন চলচ্চিত্রের সঙ্গেই। বাংলাদেশ ফিল্ম ক্লাবের মতো গুরুত্বপূর্ণ সংগঠনটির সভাপতির দায়িত্ব তারই হাতে।

ফখরুল হাসান বৈরাগীর ‘অগ্নিপথ’, আফতাব খান টুলুর ‘আমার জান’, নূর হোসেন বলাইয়ের ‘এই নিয়ে সংসার’ ছবিগুলোতে চুক্তিবদ্ধ হয়ে ১৯৯০ সালের দিকে প্রথম শুটিং করেন ওমর সানী। তবে তার প্রথম ছবি ‘চাঁদের আলো’ মুক্তি পায় ১৯৯৩ সালে। শেখ নজরুল ইসলাম পরিচালিত এই ছবিতে তার নায়িকা হিসেবে ছিলেন অভিনেত্রী আনোয়ারার মেয়ে মুক্তি। নতুন দুই মুখ নিয়ে নির্মিত ছবিটি বেশ ভালোই সাড়া ফেলেছিলো দর্শকের মধ্যে। এ ছবির ‘তুমি আমার চাঁদ আমি চাঁদেরই আলো’ গানটি আকাশচুম্বী জনপ্রিয় ছিল।

তিন দশকের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে প্রায় ১৭০টির মতো সিনেমায় অভিনয় করেছেন ওমর সানী।

নিজের ক্যারিয়ারের মুক্তি পাওয়া প্রথম সিনেমা ‘চাঁদের আলো’র পরিচালক শেখ নজরুল ইসলামকে নিজের ওস্তাদ দাবি করেন ওমর সানী।
সেই ছবির প্রযোজক ছিলেন অভিনেতা প্রযোজক দারাশিকো।’

নায়িকা হিসেবে পেয়েছেন চম্পা, অঞ্জু ঘোষ, মৌসুমী, শাবনূর, লিমা, পপি, শাহনাজ, শিল্পী, ঋতুপর্ণা, জিনাত, নিশিসহ আরও অনেককে। তবে মৌসুমী, শাবনূর ও পপি ওমর সানীর সেরা ছবিগুলোর নায়িকা বলে অনেকেই মনে করেন।

চিত্রনায়িকা মৌসুমীর সঙ্গে জুটি বেঁধে ওমর সানী অনেক ব্যবসা সফল এবং জনপ্রিয় চলচ্চিত্র রয়েছে। ১৯৯৪ সালে ‘দোলা’ চলচ্চিত্রে প্রথম মৌসুমীর সঙ্গে অভিনয় করেন ওমর সানী। সেই ছবির সেটেই দুজনের পরিচয় থেকে পরবর্তীকালে সেই সম্পর্ক প্রণয় পেরিয়ে বিয়েতে গড়ায়। এই দম্পতি বর্তমানে দুই সন্তানের জনক ও জননী। তারা হলেন পুত্র ফারদিন এবং কন্যা ফাইজা।

এরপর শাবনূরের সঙ্গে জুটি বেঁধেও তুমুল সাফল্য পেয়েছেন ওমর সানী। এ জুটির ‘অধিকার চাই’, ‘রঙিন নয়নমণি’, ‘কে অপরাধী’ ছবিগুলো এখনো ঢাকাই সিনেমার দর্শককে মুগ্ধ করে। ছবিগুলোর বেশ কিছু গানও হয়েছে শ্রোতাপ্রিয়।

আর ১৯৯৭ সালে মুক্তি পাওয়া নায়িকা পপির সঙ্গে ‘কুলি’ ছবিটি সুপারহিট ছিলো। এই ছবি দিয়েই ইন্ডাস্ট্রিতে অভিষেক ঘটে পপির। ছবিতে ‘আকাশেতে লক্ষ তারা চাঁদ কিন্তু একটা রে’ গানটি খুবই জনপ্রিয়তা পেয়েছে।


error: Content is protected !!