ঢাকা, বুধবার, ২৮শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, বুধবার, ২৮শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নড়িয়ায় ৩০ জন যাত্রী নিয়ে পদ্মায় ট্রলার ডুবি ৫ বছরের এক শিশু নিখোঁজ!

শরীয়তপুরের নড়িয়ার সুরেশ্বর দরবার শরীফ মাজার জিয়ারত করতে আসা ৩০ জন যাত্রী নিয়ে পদ্মানদীতে ট্রলার ডুবে নিশি নামে ৫ বছরের এক শিশু নিখোঁজ রয়েছেন।

সোমবার (১২ অক্টোবর) বেলা ১২ টার সময় এঘটনা ঘটে। নিখোঁজ নিশি জাজিরা উপজেলার জবর আলী আকন কান্দি গ্রামের জামাল মাদবরের মেয়ে।

স্থানীয় ও ট্রলারের যাত্রী সুত্রে জানা যায়, রোববার বেলা ১২ টার সময় জাজিরা হতে সুরেশ্বর দরবার শরীফে আসার সময় নড়িয়া উপজেলার চন্ডিপুর ভিআই পি মোড় এলাকায় পদ্মা নদীতে ৩০ জন যাত্রী নিয়ে ট্রলার ডুবে যায়। এসময় পারে থাকা লোকজন ও নদীতে থাকা একটি ট্রলার এসে ডুবে যাওয়া ট্রলারে থাকা ২৯ জন যাত্রীকে উদ্ধার করে। ট্রলারে থাকা নিশি নামে শিশুটি এখনো নিখোঁজ রয়েছে।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ও কেদারপুর ইউপি চেয়ারম্যান দুর্ঘটনা স্থান পরিদর্শন করেন।

উদ্ধারকারী স্থানীয় মনির আহমদ বলেন, জাজিরা থেকে আশা ট্রলারটি সুরেশ্বর দরবার শরিফে কাছে আসলে শ্রোতের কারনে ট্রলারটি ডুবে যায়। এসময় আমরা স্থানীয়রা ট্রলারে থাকা লোকজনকে উদ্ধার করি। তবে এখনো একজন শিশু নিখোঁজ রয়েছে।

কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাফেজ ছানাউল্লাহ বলেন, জাজিরা থেকে দরবার শরীফের উদ্যেশে একটি ট্রলার আসেন। দুর্ঘটার খবর পেয়ে আমি আসি। বরিশাল হতে ডুবুরি দল আসলে উদ্ধার কাজ শুরু হবে।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ হাফিজুর রহমান বলেন, নড়িয়া থানা দিন সুরেশ্বর দরবার শরীফ এলাকায় মাজার শরীফ থেকে ৩০০ গজ দূরে পদ্মা নদীতে স্রোতের কবলে পড়ে একটি ট্রলার ডুবে যায়। যাত্রীবাহী ট্রলারটিতে প্রায় ২৫ থেকে ৩০ জন যাত্রী ছিল। ঘটনাস্থলে থাকা স্থানীয় লোকজন তাৎক্ষণিক উদ্ধার কার্যক্রম এর মাধ্যমে কয়েকজনকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয় এবং বাকিরা সাঁতরিয়ে পারে উঠতে পারলেও পাঁচ বছরের এক শিশু এখনো নিখোঁজ রয়েছে। তবে ফায়ার ব্রিগেডের লোকজনসহ পুলিশ প্রশাসনের সবাই ওখানে আছেন এবং উদ্ধার কাজ চলমান রয়েছে।


error: Content is protected !!