ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শ্রীনগরে ভাঙ্গা কালভার্টে ভোগান্তিতে পুরো এলাকার মানুষ!

অধীর রাজবংশী, শ্রীনগর মুন্সীগঞ্জ থেকেঃ মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার বাঘড়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের এছাক মাদবরের বাড়ির সামনে খালের ওপর বেহাল কালভার্টের ওপর দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকো দিয়ে মানুষ পারাপার হচ্ছেন।

 

এতে করে ওই এলাকার প্রায় দেড় শতাধিক বসতি পরিারের কয়েক হাজার মানুষের যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বেহাল সেতুর কারণে কৃষিজাত পণ্যসহ বিভিন্ন মালামাল বোঝাই যানবাহন ও যাত্রীবাহী অটোরিক্সা চলাচল করতে পারছেনা ওই রাস্তায়।

 

সরেজমিনে দেখা গেছে, বাঘড়া ইউনিয়নের তালুকদার বাড়ি খালের ওপর ওই বক্স কালভার্টের অবকাঠামো ভেঙে নিচে পরে আছে। কালভার্টের পশ্চিম পাশে বাঁশের সাঁকো দেওয়া হয়েছে।

 

জোড়াতালির মধ্যে দিয়েই ঝুঁকিপূর্ণভাবে পথচারীরা চলাচল করছেন। অপরদিকে খালটির বিভিন্ন স্থানে ভরাট-দখল করাসহ বিভিন্ন ময়লা আবর্জনা ফেলে খালটি প্রায় ভরে ফেলা হয়েছে। এতে করে খালে পানি নিস্কাশনে বাঁধাগ্রস্ত হয়ে পরছে। জানা যায়, বাঘড়া এলাকার খাঁ বাড়ি, দেওয়ান বাড়ি, বেপারী বাড়ি, তালুকদার বাড়ি, হাওলাদার বাড়িসহ বেশ কিছু পাড়ার লোকজন এখান দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণভাবে কালভার্ট পারাপারা হয়ে তালুকদার বাড়ি-কাঁঠাল বাড়ির রাস্তায় তাদের যাতায়াত করতে হচ্ছে।

 

স্থানীয়রা জানায়, গত বন্যায় কালভার্টটি ভেঙে যায়। পরে মানুষ পারাপারের জন্য বাঁশের সাঁকো দেন তারা। হাজারো মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে কালভার্টটি সংস্কার কাজের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্টদের সুদৃষ্টি কামনা করেন এলাকাবাসী। ওই এলাকার এছাক মাদবর বলেন, গত ১৬ বছর আগে এলাকাবাসীর আর্থিক সহযোগীতায় এখানে কালভার্টটি নির্মাণ করা হয়। গত বন্যায় প্লাবিত হয়ে কালভার্টটির অবোকাঠামো ভেঙে পরে।

 

বাঘড়া ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. আক্কাস শেখের কাছে এবিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, একই খালের কাঁঠাল বাড়ি ও বৈচার পাড়ায় ২টি কালভার্টের কাজ চলমান রয়েছে। ভেঙে পরা কালভার্টটির সংস্কারে বরাদ্দ হয়েছে। আশা করছি দ্রæত এর সমাধান হবে।


error: Content is protected !!