ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শরীয়তপুরের মাঝিরঘাট-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চালুর দাবিতে গণঅনশন

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ জাজিরা উপজেলার মাঝিরঘাট শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচলের দাবিতে গণঅনশন করেছে একটি সংগঠন।

 

স্বপ্নের পদ্মা সেতু থেকে ধাক্কায় রাতে শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার মাঝিরঘাট থেকে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া নৌরুটে দ্রুত সময়ের মধ্যে ফেরি চলাচলের দাবিতে শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯ টা থেকে এই শুরু করে পদ্মা সেতু রক্ষা কমিটি নামে একটি সংগঠন।

এ সময় গণ-অনশনে অংশ নেন, পদ্মা সেতু রক্ষা কমিটির আহ্বায়ক জামাল মাদবর, সদস্য-সচিব পলাশ খা, সদস্য বরকত মোল্লা, বাদশা শেখ, শাকিল মোড়ল, জাহিদ শিকারি, জিমেল আহমেদ অপি সহ আরো অন্যান্য সদস্য ও সাধারণ মানুষ।

 

মঙ্গল মাঝি ঘাট এলাকার মহসিন মাদবর সহ আরো অনেকে বলেন, এই পদ্মা সেতুর জন্য আমরা ভিটেমাটি সব হারিয়েছি। বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলার মানুষের স্বপ্নের পদ্মা সেতু বানিয়েছেন সকলের জন্য। সেই স্বপ্নের পদ্মা সেতুর রক্ষায় ফেরী ঘাট স্থানান্তর করে মাঝিরঘাট শিমুলিয়া রুটে চালু করার কথা ছিল অনেক আগেই। কিন্তু অদৃশ্য কি এক অশুভ শক্তির কারণে যেন থমকে গেছে ফেরিঘাট। নানা তালবাহানায় চালু হওয়া হচ্ছেনা ফেরিঘাট টি। তাই আমরা চাই স্বপ্নের পদ্মা সেতুতে ফেরির ধাক্কা এড়াতে আমাদের মাঝিরঘাট শিমুলিয়া নৌরুটে দ্রুত সময়ের মধ্যে ফেরিঘাট চালু করা হোক।

গণ অনশন থেকে পদ্মা সেতুর রক্ষা কমিটির আহ্বায়ক জামাল মাদবর ও সদস্য সচিব পলাশ খা জানান, গেল দুই মাসে অন্তত পাঁচ থেকে ছয় বার পদ্মা সেতুর পিলারে এবং স্পেনে ফেরির ধাক্কা লেগেছে। এমন চলতে থাকলে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় উন্নয়ন প্রকল্প স্বপ্নের পদ্মা সেতু ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যাবে। যা আমাদের কোনোভাবেই কাম্য নয়। এদিকে পদ্মা সেতুতে এমন দুর্ঘটনার কারণে অনেকদিন যাবত মাদারীপুরের বাংলাবাজার শিমুলিয়া নৌ রুটে বন্ধ রয়েছে ফেরি চলাচল। দেশের সবচেয়ে ব্যস্ততম এই নৌ রুট টি বন্ধ থাকায় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে দক্ষিণবঙ্গের মানুষকে। তাই সরকার মাঝিরঘাট শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচলে সিদ্ধান্ত নেয়। এই জন্য ইতিমধ্যে মঙ্গল মাঝির ঘাট এলাকায় একটি পন্টুন নির্মাণ করা হয়েছে। তবুও কেন যেন চালু হচ্ছে না ফেরি। তাই আমাদের দাবি স্বপ্নের পদ্মা সেতুর রক্ষা এবং দক্ষিণবঙ্গের মানুষের দুঃখ কষ্ট লাঘবে দ্রুত সময়ের মধ্যে সরকার যেন মাঝিরঘাট শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরী চলাচলের ব্যবস্থা নেন।

 

ঘাট কর্তৃপক্ষের তথ্য মতে জানা যায়, পদ্মায় তীব্র স্রোতের কারণে প্রায় এক মাসের বেশী সময় ধরে বন্ধ রয়েছে বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল। ফলে বিকল্প ভাবে ফেরি চলাচলের জন্য শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার মঙ্গল মাঝির ঘাট থেকে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে ফেরি চলাচল করার কথা ছিল। তাই বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বি আই ডব্লি টিএ) পরিস্থিতি বিবেচনা করে ফেরি চলাচলের জন্য গত 20 আগস্ট মঙ্গল মাঝির ঘাট এলাকায় ফেরি চলাচলের জন্য একটি পন্টুনের নির্মাণ কাজ শুরু করে। টুনটুনের নির্মাণকাজ শেষ হয় ২৫ আগস্ট সন্ধ্যায়। পরে দ্রুততার সাথে ওই দিন রাতেই রো রো ফেরির পন্টুন বসানো হয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত ফেরি চলাচল শুরু করতে পারেনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

 

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বি আই ডব্লি টিএ) এর কারিগরি সহকারি প্রকৌশলী মোঃ ফয়সাল বলেন ৩২ দিন যাবৎ মাদারীপুরের বাংলাবাজার থেকে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে এই রুটে যাতায়াতকারী মানুষ পড়েছেন সীমাহীন দুর্ভোগের। এই রুটে চলাচল বা যাতায়াতকারী মানুষের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে বিকল্প হিসেবে মঙ্গল মাঝির ঘাট এলাকায় আমরা একটি ফেরিঘাট নির্মাণ করি। তবে এখন পর্যন্ত এই রুটে কেন ফেরি চলাচল শুরু হচ্ছে না তা উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ বলতে পারবেন।


error: Content is protected !!