ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দাউদকান্দিতে শারদীয় দুর্গাপূজার চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

লিটন সরকার বাদল, দাউদকান্দি প্রতিনিধি:

শিউলি ও কাশফুল ফোটানো ঋতুর রানী শরতের আগমনী বার্তা বাঙালি জীবনজুড়ে শিহরণ জাগিয়ে অবস্থান নেয়। শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপনের কারণে সনাতন ধর্মাবলম্বী বাঙালিদের জন্য এ ঋতু ভিন্ন আনন্দ ও উৎসবের বার্তা নিয়ে আসে।

 

ভাদ্র ও আশ্বিন মাস এ ঋতুর স্থায়িত্বকাল হলেও আশ্বিন মাসের শেষ হতে না হতেই যেন হেমন্তের মরা কার্তিকের আমেজ দেখা দেয়।

 

আর তখন প্রকৃতির শ্বেতশুভ্র গালিচা কাশবনেও যেন আগুন লাগে। শুকিয়ে ঝরে পড়ে কাশফুল। দরজায় কড়া নাড়ছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব।

 

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় এই উৎসবকে ঘিরে কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি উপজেলার প্রতিটি পূজামণ্ডপে চলছে প্রতিমা তৈরির শেষ মুহূর্তের কাজ।

 

মাটির কাজ শেষ করে এখন চলছে সাজসজ্জার কাজ। রঙের আঁচড়ে দেবী দুর্গাকে সাজিয়ে তোলা হচ্ছে নানা রঙ-ঢঙে। পূজা ঘনিয়ে আসায় এখন রাত দিন ব্যস্ত সময় পার করছে মৃৎশিল্পীরা।

 

সরেজমিনে দেখা যায়, প্রতিটি প্রতিমাকে রঙ-তুলির নিপুণ আঁচড়ে রাঙাতে ব্যস্ত শিল্পীরা। চলছে সাজ-সজ্জার কাজও। দেবী দুর্গার সাথে সাজিয়ে তোলা হচ্ছে কার্তিক, গণেশ, লক্ষ্মী আর সরস্বতী দেবীকেও। যেন দম ফেলার ফুসরত নেই মৃৎশিল্পীদের। পুরুষদের কাজে সাহায্য করছে বাড়ির নারীরাও।

 

উপজেলার পৌর সদরের সাহাপাড়া গ্রামের মৃৎশিল্পী দীলিপ পাল ও রঞ্জিত পাল জানান, এ বছর পূজার আগে করোনার প্রভাব কমে যাওয়ায় গত বারের চেয়ে পূজা মণ্ডপের সংখ্যা বেড়েছে। এবার দীলিপ পাল ১৭টি ও রঞ্জিত পাল ১০ টি দুর্গা প্রতিমা তৈরির কাজ পেয়েছেন। সবকটি প্রতিমার মাটির কাজ শেষ। এখন রং তুলির কাজ চলছে।

 

তিনি জানান, আগামী দুই দিনের মধ্যেই সব কাজ শেষ হয়ে যাবে। রং ও সাজ সজ্জার কাজ শেষ হলে এখান থেকে প্রতিমাগুলো জেলার বিভিন্ন পূজা মণ্ডপে পাঠানো হবে।

 

উপজেলার সবচে বড় পাল হলো সাহাপাড়া গ্রামে রঞ্জিত পাল ও দিলিপ পাল এই পাল পরিবার দীর্ঘদিন ধরে প্রতিমা তৈরির কাজ করে আসছে। এবছর এই পাল বাড়িতে প্রায় ২৭ টি প্রতিমা তৈরি হচ্ছে।

 

উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বাবু বাসুদেব ঘোষ জানান, এবার কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি উপজেলায় ৫৬ টি পূজা মণ্ডপে দুর্গাপূজার আয়োজন করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে উৎসব উদযাপনের সব প্রস্তুতি নিয়েছে পূজা উদযাপন পরিষদ।

 

ইতোমধ্যেই উপজেলা প্রশাসন ও থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ নেতৃবৃন্দের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। সরকারি নির্দেশনা মেনে পূজার আয়োজন করতে বলা হয়েছে। সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে দেবীর অর্ঘ্য নিবেদনের জন্য সবধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

 

এদিকে দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুল ইসলাম খান ও দাউদকান্দি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নজরুল ইসলাম জানান, অনুষ্ঠান নির্বিঘ্ন করতে প্রতিটি পূজা মণ্ডপে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সেইসঙ্গে এখন যে সব পাল বাড়িতে এবং পূজা মণ্ডপে প্রতিমা তৈরির কাজ চলছে সেসকল স্থানে পুলিশি টহল জোরদার করা হয়েছে।


error: Content is protected !!