ঢাকা, শুক্রবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, শুক্রবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Notice: Use of undefined constant php - assumed 'php' in /home/bhorerso/public_html/wp-content/themes/newsportal/lib/part/top-part.php on line 49

কেশবপুরে নামের সাথে মিল থাকায় অন্য ব্যক্তিকে স্বাধীনতা বিরোধী পিচ কমিটির সদস্য বানিয়ে ফাঁসিয়ে দেয়ার চেষ্টার অভিযোগ

জাহিদ আবেদীন বাবু, কেশবপুর (যশোর) থেকে। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় স্বাধীনতা বিরোধী পিচ কমিটির এক সদস্যের নামের সাথে মিল থাকায় যশোরের কেশবপুর উপজেলার গৌরিঘোনা ইউনিয়নের এক ব্যক্তি বিপাকে পড়েছেন। সক্রিয় সদস্য হয়েও তিনি রাজনৈতিক বিভিন্ন সুবিধা লাভের আশায় একই নামের অন্য ব্যক্তিকে পিচ কমিটির সদস্য বানিয়ে ফাঁসিয়ে দেয়ার চেষ্টার লিপ্ত রয়েছেন। জীবনের শেষ বয়সে এসে নানাবিধ বিড়ম্বনায় পড়ছেন বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী কেশবপুরের গৌরিঘোনা ইউনিয়নের ইউসুফ শেখের ছেলে শেখ সিদ্দিকুর রহমান।

 

সোমবার দুপুরে কেশবপুর প্রেসক্লাবের সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তিনি এসব অভিযোগ করেন। লিখিত অভিযোগে শেখ সিদ্দিকুর রহমান উল্লেখ করেন, গৌরিঘোনা ইউনিয়নের মৃত রহিম বক্স সরদারের ছেলে এস এম সিদ্দিকুর রহমান ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় পিচ কমিটির ইউনিয়নের সহ-সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করেন। যেটা তৎকালীন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড কাউন্সিলের কমান্ডার মোহাম্মদ আলী ০৫/০৭/২০১০ সালে নিজে স্বাক্ষর করে প্রত্যায়ন পত্র দিয়েছেন।

 

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, উক্ত এস এম সিদ্দিকুর রহমানের নামের সাথে আমার নামের মিল থাকায় তিনি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সীল ও স্বাক্ষর জালিয়াতি করে তার নামের স্থানে আমার নাম বসিয়ে এলাকায় প্রচার করে আমার মান সম্মান ক্ষুন্ন করে চলেছেন। এছাড়া মুক্তিযুদ্ধের আমার বয়স ছিলো ১৪/১৫ বছর। সুতরাং এস এম সিদ্দিকুর রহমান নিজের দোষ আমার ওপর চাপিয়ে আমাকে সমাজ ও রাষ্ট্রে হেয় করে চলেছেন। ২০১৬ সালেও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম রুহুল আমিন সীল ও স্বাক্ষর করে প্রত্যায়ন দিয়েছিলেন, এস এম সিদ্দিকুর রহমান পিচ কমিটির সাথে জড়িত ছিলেন।

 

সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তিনি এ ঘটনার তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদসহ এ বিষয়ে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং মুক্তিযুদ্ধের সকল সংগঠনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

 

সংবাদ সম্মেলনের সময় উপস্থিত ছিলেন, গৌরিঘোনা ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল মালেক ও সাধারণ সম্পাদক নেপাল চন্দ্র হোড়।

 

এ বিষয়ে এস এম সিদ্দিকুর রহমান বলেন, এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক। তৎকালীন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড কাউন্সিলের কমান্ডার মোহাম্মদ আলী ১১/১২/২০১৩ সালে এবং পরবর্তীতে অপর একজন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড কাউন্সিলের কমান্ডার এস এম আনিসুর রহমান ১০/০৩/২০১৬ সালে পৃথকভাবে প্রত্যায়ন দিয়েছেন, এস এম সিদ্দিকুর রহমান পিচ কমিটির সদস্য ছিলেন না।


error: Content is protected !!