ঢাকা, সোমবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, সোমবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

উপার্জনে বরকত লাভের উপায়

  • 7Words
  • Views

ইসলাম শুধু আল্লাহ তায়ালার ইবাদতের কথা বলেনি। ইবাদতের পাশাপাশি জীবনধারণে সব ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছে। ঘরে বসে না থেকে কাজ-কর্মের নির্দেশ দিয়েছে। আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘নামাজ যখন সম্পন্ন হয়, তখন তোমরা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়ো এবং আল্লাহর অনুগ্রহ অনুসন্ধান করো।’-(সুরা জুমা : ১০)

 

 

মানুষ যেই উপার্জন করে তা আল্লাহর পক্ষ থেকে বান্দার জন্য বিশেষ অনুগ্রহ। এই উপার্জনে বরকত লাভের জন্য শর্ত হলো হালাল উপায়ে রিজিক তালাশ করা। কোরআন-হাদিসে হালাল উপার্জনের ব্যাপারে বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে।

আল্লাহ তায়ালা প্রত্যেক নবীকে হালাল রিজিক অন্বেষণের তাগিদ করেছেন। তার হুকুমে নবীরাও জীবিকা উপার্জনের জন্য হালাল পেশা বেছে নিয়েছেন। আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘হে রাসুলগণ! পবিত্র বস্তু আহার কর, আর সৎ কাজ কর, তোমরা যা কর সে সম্পর্কে আমি পূর্ণরূপে অবগত।’ (সুরা মুমিনুন: ৫১)

মুমিনদের উদ্দেশ্যে আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘হে মুমিনগণ! আমার দেয়া পবিত্র বস্তুগুলো খেতে থাক এবং আল্লাহর উদ্দেশে শোকর করতে থাক, যদি তোমরা তারই ইবাদত করে থাক।’-(সুরা বাকারা: ১৭২)

নামাজ, রোজার মতো হালাল উপার্জনও ফরজ ইবাদত। আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘অতঃপর যখন নামাজ সমাপ্ত হয়, তখন জমিনে ছড়িয়ে পড়, আর আল্লাহর অনুগ্রহ সন্ধান কর এবং আল্লাহকে বেশি বেশি স্মরণ করতে থাক, যাতে তোমরা সাফল্য লাভ করতে পার।’ (সুরা জুমুআ: ১০)

রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘হালাল জীবিকা সন্ধান করা নির্ধারিত ফরজগুলোর পরে বিশেষ একটি ফরজ।’ (বায়হাকি) জান্নাতে যাওয়ার পূর্বশর্ত হলো হালাল উপার্জন। প্রিয় নবী (সা.) বলেছেন, ‘ওই দেহ জান্নাতে যাবে না, যা হারাম খাবার থেকে উৎপন্ন। জাহান্নামই এর উপযোগী।’ -(তিরমিজি: ৬১৪)