ঢাকা, বুধবার, ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, বুধবার, ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পুত্রবধূর বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়ে থানায় নওয়াজউদ্দিনের মা

  • 1Words
  • Views

পুত্রবধূর সঙ্গে সম্পত্তি নিয়ে অশান্তি। ঝগড়া না করে সোজা পুলিশের দ্বারস্থ হলেন বলিউড অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি মা মেহেরুন্নিসা সিদ্দিকি। ভারতের মুম্বাইয়ের ভার্সোভা থানায় অভিনেতার স্ত্রী জেইনাব আলিয়ার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন অভিনেতার মা। পুলিশের পক্ষ থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আলিয়াকে সমন পাঠানো হয়েছে।

নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির মায়ের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরেই একটি সম্পত্তির অধিকার নিয়ে আইনি বিবাদ চলছিল বউ-শাশুড়ির। আর সেটা নিয়েই নওয়াজের মায়ের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন আলিয়া। আর সেই কারণেই পুলিশের কাছে দ্বারস্থ হন নওয়াজের মা। এই মামলার প্রতিলিপি ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেছেন নওয়াজের স্ত্রী জেইনাব আলিয়া।

প্রসঙ্গত, ১১ বছরের এই দাম্পত্যে ইতি টেনেছেন বলিউডের উঠতি প্রযোজক আলিয়া সিদ্দিকি? জানিয়েছিলেন, অনেক কারণ রয়েছে, যেগুলো এখনই আমি জনসমক্ষে আনতে চাই না। কিন্তু বিয়ের মাস কয়েকের মধ্যেই আমাদের সমস্যা শুরু হয়ে গিয়েছিল। সেই ২০১০ সাল থেকেই। এতদিন পর্যন্ত নওয়াজের সঙ্গে সব সমস্যা নিজের মতো করে সামলে নিচ্ছিলাম। তবে সেই সমস্যাগুলো মাত্রাছাড়া হয়ে গিয়েছে বর্তমানে। তাই আর সামলানো সম্ভব নয়! লকডাউনে অনেক ভাবার সময় পেয়েছি। ভেবেচিন্তেই এই সিদ্ধান্ত নিলাম।

তিনি বলেন, বিয়ে টিকিয়ে রাখার জন্য প্রত্যেকটা সম্পর্কে আত্মমর্যাদা বজায় থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর নওয়াজের আর আমার সম্পর্কের মধ্যে যেটা প্রায় শেষই হয়ে এসেছিল। আমাকে বারবার মনে করানো হতো, যে তার কাছে আমি কিছু না। সবসময়ে নিজেকে খুব একা মনে হতো। এছাড়া তার ভাই শামাজেরও কিছু বিষয় রয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে উত্তরাখণ্ডের শাহিবা নামের একজনের সঙ্গে প্রথম বিয়ে হয় নওয়াজের। কিন্তু বিয়ের ৬ মাসের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়ে যায়। এরপরই অঞ্জনা আনন্দের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন নওয়াজ। বিয়ের পর অঞ্জনা নাম পালটে হন আলিয়া সিদ্দিকি। তবে, এবার আর সেই নাম তিনি রাখতে চান না। তাই আলিয়া থেকে অঞ্জনা আনন্দ কিশোর পান্ডে নামে ফের নিজের নাম আইনিভাবে নথিভুক্ত করেছেন আলিয়া।