ঢাকা, রবিবার, ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, রবিবার, ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রনয়ণের দাবিতে মানববন্ধন

সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রনয়ণের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে বাংলাদেশ সনাতন পার্টি (বি.এস.পি)।

শুক্রবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৪ ঘটিকায় কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি অনুপ কুমার দত্তের সভাপতিত্বে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করে তারা।  উক্ত মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃত্ববৃন্দ একত্বতা প্রকাশ করেন। মানববন্ধনে ও বিক্ষোভ সমাবেশে বাংলাদেশে সনাতন পার্টি (বি.এস.পি)-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সাধারন সম্পাদক এ্যাড. সুমন কুমার রায়-এর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন- বিপুল কর, অনিল পাল, কৃষ্ণ কর্মকার, শেফালী ঘোষ, চিকিৎসক ক্ষিতিষ চন্দ্র রায়, নীহার হালদার, বাংলাদেশ সনাতন যুব পার্টির আহ্বায়ক অমিত কুমার বর্মন, বাংলাদেশ সনাতন ছাত্র পার্টির আহ্বায়ক পিযুষ দাস, সদস্য সচিব হিমেল মিস্ত্রী, লিটু দাস, সুমন মন্ডল, রাজিব কর রাজু, মানবদাস, ছাত্র মহাজোটের সাধারণ সম্পাদক রনি রাজবংশী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক উজ্জল মালাকার, প্রচার সম্পাদক টিম্পল পাল, মানবদাস, শিশির বিশ্বাস, তপু দাস, প্রমুখ ব্যাক্তিবর্গ।
বাংলাদেশ সনাতন পার্টি (বি.এস.পি)-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সাধারন সম্পাদক এ্যাড. সুমন কুমার রায় বলেন – বর্তমান সরকার ডেঙ্গু ও দ্রব্য মূল্যের দাম নিয়ন্ত্রণে যেমন ব্যর্থ হয়েছেন তেমনি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে নিরাপত্তা দিতে সরকার সম্পূর্ণ ভাবে ব্যর্থ হয়েছেন। বর্তমান সরকারের আমলে সংখ্যালঘু সম্প্রদায় সবচেয়ে বেশি অত্যাচার ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছে, কিন্তু সরকার নির্বাক, চোখে কালো চশমা পড়ে আছে। পাকিস্তান আমলে ও সংখ্যালঘুরা এতো নিরাপত্তা হীনতাবোধ করেনি, এতো মঠ-মন্দির ভাংচুর হয় নাই, জায়গা-জমি দখল হয়নি। সংখ্যালঘু সহ রাষ্ট্রের সকল নাগরিকের নিরাপত্তার দায়িত্ব সরকার তথা রাষ্ট্রের অনতি বিলম্বে সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রনয়ণ করে আওয়ামীলীগের নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষিত প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের জোর দাবী জানান। অনতি বিলম্বে সুরক্ষা আইন প্রণয়নের জন্য তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
বাংলাদেশ সনাতন পার্টি (বি.এস.পি)-এর উপদেষ্টা ও বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি দিপঙ্কর শিকদার দিপু বলেন যে, বর্তমান সরকার ২০০১ সাল থেকে ২০২৩ পর্যন্ত সংখ্যালঘুদের উপরে সংঘটিত একটা ঘটনারও সুষ্ঠ বিচার করেন নাই। ভবিষ্যত্বে যাতে এই ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনা না ঘটে তার জন্য অনতি বিলম্বে সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রনয়ণে জোড় দাবী জানান।
অদ্যকার সমাবেশের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনুপ কুমার দত্ত বলেন- সরকার এর এই মেয়াদে সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন পাশ না হলে আগামী দিন গুলোতে সনাতনী সম্প্রদায় আওয়ামী লীগকে বর্জন করবে। আশাকরি সরকার এর শুভ-বুদ্ধির উদয় হবে। তিনি সরকার তথা সকল রাজনৈতিক দলের প্রতি সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন পাশের জন্য এগিয়ে আসার উদত্ত আহবান জানান।
উক্ত মানববন্ধনে বক্তাগন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রানের দাবী আওয়ামীলীগের ২০১৯ সালের নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষিত সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন বাস্তবায়নের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকষর্ণ করেন।


error: Content is protected !!