ঢাকা, বুধবার, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, বুধবার, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নোয়াখালীতে ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে মারধর, আটক ১

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের আমান উল্যাহ পুর ইউনিয়নে চাঁদার দাবিতে যুবলীগের নেতা কর্মীদের মারধরের শিকার এক ব্যবসায়ী গুরুতর আহত হয়েছেন।পরে তাকে আশংকাজনক অবস্থায় জেলা শহর মাইজদীর একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত ব্যবসায়ী কফিল উদ্দিন (৩০) ওই ইউনিয়নের আইয়ূব পুর গ্রামের পন্ডিত বাড়ীর লকিয়ত উল্যার ছেলে এবং স্থানীয় আমান উল্যাপুরের শ্যামবাড়ী দরজার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী।

তাৎক্ষণিক, পুলিশ অভিযান চালিয়ে এ ঘটনার সাথে জড়িত ১ জনকে আটক করেছে। আটককৃত, রায়হান (২৮) একই ইউনিয়নের অভিরামপুরের মোরশেদ আলমের ছেলে।সোমবার রাতে উপজেলার আমান উল্যাহ পুর ইউনিয়নে একেজি হাই স্কুলের সামনে এ ঘটনা ঘটে।মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) সকাল ১১টায় বেগমগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ কামরুজ্জামান শিকদার জানান, এ ঘটনায় ব্যবসায়ীর স্ত্রী বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছে। পুলিশ রায়হান নামে একজনকে আটক করেছে। অপর আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে। আটক আসামিকে মামলার আলোকে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, যুবলীগের স্থানীয় নেতা জুয়েল,বাবু ও রায়হান ওই ব্যবসায়ীর নিকট চাঁদা দাবি করে আসছিল।

কফিল উদ্দিন চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তারা তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে রাতে ওই ব্যবসায়ী বাজার থেকে বাড়ী যাওয়ার পথে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা যুবলীগের কয়েকজন নেতাকর্মি তাকে মটর সাইকেল যোগে অপহরণ করে স্যারের সাঁকু নিয়ে মুক্তিপণ দাবি করে। এসময় তার মোবাইল ফোন ও টাকা নিয়ে তাকে বেধড়ক মারধর করে। খবর পেয়ে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতায় কফিল উদ্দিনকে উদ্ধার করে। পরে পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে।

স্থানীয়রা আরো জানান,স্থানীয় যুবলীগের জুয়েল,বাবু ও রায়হানের অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। চাঁদাবাজি, ছিনতাই সহ নানা অপকর্মে জড়িত তারা। সরকারী দলের কয়েকজন প্রভাবশালী নেতার আশ্রয়-প্রশয়ে তারা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।


error: Content is protected !!