ঢাকা, বুধবার, ১৬ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, বুধবার, ১৬ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শ্রীনগরে নতুন বাজার বেহাল রাস্তায় জলাবদ্ধতা!

শ্রীনগর (মুন্সিগঞ্জ) থেকে : শ্রীনগর উপজেলার রাঢ়িখাল ইউনিয়নের বালাশুর এলাকার নতুন বাজার রাস্তায় জলাবদ্ধতার কারণে হাজারো মানুষের যাতায়াতে চরম ভোগান্তি হচ্ছে।

 

প্রায় ৪০০ ফুট রাস্তার পানি নিস্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় বৃষ্টির কাঁদাযুক্ত পানি জমে থাকতে দেখা গেছে। এতে শিশুসহ বয়স্ক নারী-পুরুষ চলা ফেরায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন।

 

 

এছাড়াও জলাবদ্ধ এসব পানিতে বিষাক্ত মশার বংশ বিস্তারের আংশঙ্কা করা হচ্ছে। অপরদিকে নতুন বাজার থেকে অগ্রসর বিক্রমপুর যাদুঘর (সাবেক জমিদার যদু নাথের বাড়ি) পর্যন্ত একই সড়কের প্রায় ৬০০ ফুট বেহাল রাস্তায় চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পরেছে।

 

 

সরেজমিনে দেখা গেছে, ভাগ্যকুল-দোহার সড়কের বালাশুর চৌরাস্তা থেকে সংযোগ রাস্তাটি রাঢ়িখাল ইউনিয়নের অগ্রসর বিক্রমপুর হয়ে একই এলাকার নতুন বাজার পর্যন্ত প্রায় দেড় কলোমিটার পাকা রাস্তার প্রায় ১০০০ ফুট নাজুক রাস্তার চিত্র।

 

 

বিক্রমপুর যাদুঘর থেকে নতুন বাজারের দক্ষিণ অংশে পুরো রাস্তা জুড়ে বড় বড় গর্তে ভরপুর। এখানে রাস্তার অনেকাংশেই পিচ উঠে গিয়ে ভাঙ্গণের সৃষ্টি হয়েছে। মোটরসাইকেল, অটোরিক্সাসহ অন্যান্য যানবাহনের চাকা রাস্তার গর্তে দেবে যাচ্ছে। এতে করে মাঝে মধ্যেই দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন পথচারী।

 

 

অপরদিকে একই রাস্তার নতুন বাজার থেকে নাগরনন্দি খালের দিকের চিত্র আরো ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। কারণ হিসেবে দেখা গেছে, প্রায় ৪০০ ফুট রাস্তা এখন প্রায়ই হাঁটু পানির নিচে। জলাবদ্ধত রাস্তায় হাজারো মানুষের চলাচল প্রায় অসম্ভব হয়ে পরেছে। লক্ষ্য করা গেছে, বাজারের পাশে ডোবাগুলো ভরাট করায় বৃষ্টির পানি নিস্কাশন হতে পারছেনা। সামান্য বৃষ্টির পানি দিনের পর দিন জমে থাকছে।

 

 

এলাকাবাসী জানায়, গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি প্রায় সময়ই এখন জলাবদ্ধ হয়ে পরে। একারণে বাজারে আসা শত শত মানুষের যাতায়াতে দুর্ভোগ বেড়েছে। এছাড়া একই রাস্তার বিক্রমপুর যাদুঘর পর্যন্ত রাস্তার বেহাল অংশ সংস্কার কাজ হলে মানুষের দুর্ভোগ লাঘব হবে।

 

 

নতুন বাজারের দোকানীরা জানায়, এখানে পানি নিস্কাশনের জায়গা গুলো মাটি ভরাট হয়ে যাওয়ায় জলাবদ্ধার সৃষ্টি হচ্ছে। জমে থাকা পানিতে বিষাক্ত মশার বংশ বিস্তারের সম্ভবনা রয়েছে। মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্টদের সুদৃষ্টি কামনা করেন তারা।

 

 

এব্যপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য আজিজুল হক মাস্টার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গত কয়েকদিনের বৃষ্টির পানি জমে গেছে। সাময়িকভাবে পানি নিস্কাশনের জন্য চেষ্টা করছি। এছাড়াও একই রাস্তার ভাঙাচূড়া অংশ সংস্কার কাজের জন্য চেষ্টা তদবীর চলছে জানান তিনি।


error: Content is protected !!