ঢাকা, রবিবার, ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, রবিবার, ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পদ্মা সেতুতে চলন্ত যান থেকে টোল আদায় শুরু

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি:
পদ্মা সেতুতে প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে চলন্ত গাড়ি থেকে টোল আদায় শুরু হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে দশটায় থেকে ইলেকট্রনিক টোল কালেকশন সিস্টেমের (ইটিসিএস) মাধ্যমে এ টোল আদায় করা হয়। তবে আপাতত পরীক্ষামূলকভাবে এ পদ্ধতি চালু হচ্ছে।

 

রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি আইডেন্টিফিকেশন (আরএফআইডি) পদ্ধতিতে দুই পাড়ে একটি করে বুথে এ টোল আদায় করা হচ্ছে। এ পদ্ধতির জন্য রেজিস্ট্রেশন করা গাড়ি টোল প্লাজার সামনে আসতেই রোবোটিক ক্যামেরা গাড়ি শনাক্ত করবে। নির্ধারিত টোল কাটা হলে ব্যারিয়ার উঠবে এবং স্ক্রিনে ব্যালেন্স দেখা যাবে। এ ছাড়া হাইব্রিড সিস্টেম টাচ অ্যান্ড গো পদ্ধতিও থাকবে। কার্ডে ব্যালেন্স থাকলে টাচে ক্যাশলেস টোল দেওয়া যাবে। কেউ চাইলে ক্যাশেও টোল দিতে পারবেন। নতুন এ দুই পদ্ধতি চালু হলে টোল প্লাজা অতিক্রমে কোনো সময় অপচয় হবে না।

 

 

৫ জুলাই ২০২৩ , বুধবার সকালে সেতু সচিব মঞ্জুর হোসেন পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে উপস্থিত থেকে টোল আদায়ের নতুন এ পদ্ধতি পর্যবেক্ষণ করেন।

 

সেতু কর্তৃপক্ষের অতিরিক্ত পরিচালক আমিরুল হায়দার চৌধুরী বলেন, বর্তমানে কম্পিউটারে কালেক্টর পদ্ধতিতে ম্যানুয়ালি টোল আদায় করা হচ্ছে। পদ্মা সেতুর দুই প্রান্তে এখন ১৫টি লেন দিয়ে টোল আদায় করা হয়। এ প্রক্রিয়া আধুনিক করার ক্ষেত্রে ১৭টি লেন চালু থাকবে। পরিকল্পনা আছে- মাওয়া প্রান্তে ১ নম্বর বুথে আরএফআইডি, ২ নম্বর বুথে হাইব্রিড বা আরএফআইডি, টাচ অ্যান্ড গো এবং ক্যাশ তিন পদ্ধতিই থাকবে। আর ৩ থেকে ৭ নম্বর পাঁচটি বুথে থাকবে টাচ অ্যান্ড গো এবং ক্যাশ । বাকি ৮ নম্বর বুথে শুধু মোটর সাইকেলের বর্তমান সিস্টেমে টোল আদায় করা হবে।

 

একই ভাবে জাজিরা প্রান্তে টোল আদায় হবে। তবে এ প্রান্তে ৯টি বুথ থাকবে। এখানে ৮ ও ৯ নম্বর বুথে কম্পিউটার কালেক্টর পদ্ধতিতে ম্যানুয়ালি নগদ টাকা আদায় করা হবে। এ টোল আদায়ের জন্য কার্ড ও রেজিস্ট্রেশনের জন্য মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতু উত্তর থানার কাছে কাউন্টার চালু করা হবে।


error: Content is protected !!