ঢাকা, শনিবার, ২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, শনিবার, ২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পুঁজিবাজারে সূচক পতনের দিনে বেড়েছে লেনদেন

বিমা খাতের চমকেও পুঁজিবাজারে থামেনি পতন। শেয়ার বিক্রির চাপে সপ্তাহের শেষ কর্মদিবস বৃহস্পতিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) পুঁজিবাজারে সূচক পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন হয়েছে। তবে বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণ। এর ফলে টানা দুই কর্মদিবস উত্থানের পর আজ সূচক পতন হলো।

দাম বাড়ার বিপরীতে দ্বিগুণ কোম্পানির শেয়ারের দাম কমায় এদিন দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক কমেছে ২ পয়েন্ট। অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক কমেছে ৫ পয়েন্ট।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, এ দিন বিমা খাতের ৫৭টি কোম্পানির শেয়ারের মধ্যে দাম বেড়েছে ৩৮টির, কমেছে ১১টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৮ কোম্পানির শেয়ারর দাম। বিমা খাতের শেয়ারের দাম বাড়লেও কমেছে খাদ্য, ওষুধ এবং বস্ত্র খাতসহ সব কয়টি খাতের শেয়ারের দাম। তাতেই সূচক পতন হয়েছে বলে মনে করেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

ডিএসইর দেওয়া তথ্য মতে, বৃহস্পতিবার বাজারে লেনদেন হওয়া ৩১৯ কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৫৮টির। তার বিপরীতে কমেছে ৯৭টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ১৬৪টি কোম্পানির শেয়ারের।

তাতে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ২ দশমিক ৮৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৩০২ পয়েন্টে। ডিএসইর অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস শরীয়াহ সূচক ২ দশমিক ৮৬ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৩৬০ পয়েন্টে। ডিএস-৩০ সূচক ৩ দশমিক ৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ১৩৪ পয়েন্টে।

এদিন ৩১৯টি কোম্পানির ১৩ কোটি ২৪ লাখ ৪২ হাজার ৫৮২টি শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে; যা টাকার অঙ্কে ৬৯৭ কোটি ৮ লাখ ৭৬ হাজার টাকা। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৬৬২ কোটি ৫৪ লাখ ৪০ হাজার টাকা। অর্থাৎ লেনদেন আগের দিনের চেয়ে বেড়েছে।

ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে ছিল ফু-ওয়াং ফুডের শেয়ার। দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার। তৃতীয় অবস্থানে ছিল কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার।

এরপরের তালিকায়  ছিল— জেমিনি সি ফুড, মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজ, মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, এশিয়া প্যাসিফি ইন্স্যুরেন্স, গ্রিন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল এবং বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের শেয়ার

আরেক পুঁজিবাজার সিএসই প্রধান সূচক ৫ দশমিক ২৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৬২৬ পয়েন্টে। সিএসইতে ১৪৮টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দাম বেড়েছে ৩৮টির, কমেছে ৫৮টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৫২টির দাম।

দিন শেষে সিএসইতে ১১ কোটি ৫৮ লাখ ২২ হাজার ৯৯৫ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।


error: Content is protected !!