ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শরীয়তপুরে সাংবাদিকের উপর হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচী পালিত

শরীয়তপুর প্রতিনিধি: শরীয়তপুরে এটিএন বাংলা, এটিএন নিউজ ও বাংলাদেশ প্রতিদিনের জেলা প্রতিনিধি জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক রোকনুজ্জামান পারভেজের ওপর হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত পুলিশ সুপারের কার্যালয় চত্বরে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

সাংবাদিক রোকনুজ্জামান পারভেজ ওপর হামলার  ঘটনায় সদরের পালং মডেল থানায় চার ব্যক্তিকে আসামী করে মামলা করেছেন। তিনি শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

 

বুধবার সকাল পর্যন্ত কোন আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। আসামীদের গ্রেফতারের দাবিতে শরীয়তপুরে কর্মরত সাংবাদিকরা পুলিশ সুপারের কার্যালয় চত্বরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে।

শরীয়তপুর সদরের পালং মডেল থানা সূত্র ও সাংবাদিকরা জানায়, গত সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রোকনুজ্জামান পারভেজ শরীয়তপুর পৌরসভার পালং এলাকার তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসে ছিলেন। এসময় ২০/২৫ জন ব্যক্তি এক নারীকে রড ও লাঠি দিয়ে মারধর করছিল। এক পর্যায়ে তার দোকানে আশ্রয় নেন ওই নারী। তখন ওই সন্ত্রাসীদের দোকান থেকে বের হতে বলেন পারভেজ। ঘটনাটি ভিডিও করার সময় পারভেজকে কিল-ঘুষি ও রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন তারা। এসময় দোকান থেকে নগদ টাকাও লুট করা হয়। হামলাকারীরা শরীয়তপুর পৌরসভার উত্তর পালং গ্রামের আবুল কাশেম মিয়ার ছেলে নাজমুল মাদবর ও নাঈম মাদবরের অনুসারী বলে অভিযোগ করেন রোকনুজ্জামান পারভেজ।

 

রোকনুজ্জামান পারভেজ বাদি হয়ে পালং মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় উত্তর পালং এলাকার নাজমুল হাসান (২৫), নাইমুল হাসান নিলয় (২২),হৃদয় (২৫), রিফাতকে (২৩) ও ১০/১৫ অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামী করা হয়েছে।

শরীয়তপুরে কর্মরত সাংবাদিকরা সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে পুলিশ সুপারের কার্যালয় চত্বরে অবস্থান কর্মসূচী শুরু করেন। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশ সুপার এসএম আশরাফুজ্জামান সেখানে আসেন। তিনিও কিছু সময় সাংবাদিকদের সাথে কর্মসূচীতে অবস্থান করছেন। পরে দ্রুততম সময়ে আসামী গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার প্রতিশ্রুতি দিলে সাংবাদিক নেতারা ওই কর্মসূচী মুলতবি করেন। আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে আসামীদের গ্রেফতার করা না হলে নতুন কর্মসূচী ঘোষনা দেয়ার কথা জানান সাংবাদিকরা।

 

শরীয়তপুর ইলোক্ট্রনিক্স মিডিয়া জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক শহীদুজ্জামান খান বলেন, আমাদের সহকর্মী গুরুতর আহত, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। কিন্তু পুলিশের কোন সহানুভূতি নেই। পুলিশ আসামী গ্রেফতার করার কোন তৎপরতা দেখাচ্ছেন না। পুলিশের এ আচরন আমাদের বিস্মিত ও ক্ষুব্দ করেছে। তাই বাধ্য হয়ে আন্দোলন কর্মসূচী দেয়া হয়েছে।

 

শরীয়তপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি অনল কুমার দে বলেন, রোকনুজ্জামান পারভেজের ওপর হামলা ও মারধরের ঘটনাটিতে আমরা শঙ্কিত। পুলিশ এখনো কেন আসামীদের গ্রেফতার করছেন না তা রহস্যজনক।

 

নাজমুল মাদবর ও নাঈম মদবর ঘটনার পর আত্মগোপনে আছেন। তাদের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

 

পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আক্তার হোসেন বলেন, আহত অবস্থায় রোকনুজ্জামান পারভেজকে পুলিশই উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে। আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার এসএম আশরাফুজ্জামান বলেন, সাংবাদিকরা জাতীর বিবেক। তাদের ওপর হাসলা দুঃখজনক। আমি ব্যক্তিগতভবে ব্যাথিত হয়েছি। আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি দ্রুততম সময়ের মধ্যে আসামীদের গ্রেফতার করে আইনের কাছে সোর্পদ করা হবে।


error: Content is protected !!