ঢাকা, বুধবার, ২৫শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
ঢাকা, বুধবার, ২৫শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মৌসুমী যে কারণে মিশা-জায়েদ প্যানেলে

আবারও সরগরম হয়ে উঠেছে চলচ্চিত্রাঙ্গন। ২৮ জানুয়ারি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ১৭তম নির্বাচন। এরইমধ্যে দল গোছানো হয়ে গেছে প্রধান দুই প্যানেলের। যার একটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন প্রখ্যাত চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। অপরটিতে সভাপতি হিসেবে আছেন জনপ্রিয় অভিনেতা মিশা সওদাগর।

বেশ চকক দিয়ে এবার শিল্পী সমিতির নির্বাচনে মিশা-জায়েদের প্যানেলে থেকে এবার কার্যনির্বাহী সদস্য পদে নির্বাচন করছেন মৌসুমী। এই প্যানেলের প্রতি সমর্থন আছে ওমর সানিরও। ২০১৯-২০২১ মেয়াদের দ্বিবার্ষিক নির্বাচনে মিশা-জায়েদের প্যানেলের বিরুদ্ধে একাধিক অনিয়মের অভিযোগ তোলেন মৌসুমী ও তাঁর স্বামী চিত্রনায়ক ওমর সানি।

দুই বছরে এমন কী হল ‘সেই’ মিশা-জায়েদের প্যানেলে নির্বাচন করছেন মৌসুমী? এমন প্রশ্নে এফডিসিতে উপস্থিত সাংবাদিকদের মৌসুমী জানিয়েছেন, ‘আমি অনেক শিল্পীদের কাছ থেকে শোনেছি যে আসলে মিশা-জায়েদ অনেক কাজ করে দিয়েছে। বিগত দিনের সবগুলো কাজই তারা (মিশা-জায়েদ প্যানেল) ভালো কাজ করছে। আমি তাদের সেই ভালো ভালো কাজের সমর্থক হিসেবে এই প্যানেলে দাঁড়িয়েছি।’

 

এছাড়া মৌসুমী আরও জানিয়েছেন, ‘মিশা-জায়েদ খানরা আমার কাছে আগে এসেছিলেন বলেই তাদের প্যানেলে গিয়েছি। আমাকে অনুরোধ করেছেন বলেই প্রার্থী হয়েছি। এছাড়া বিভেদ করে তো কিছু হয় না। আমি চাই সবাই মিলেমিশে থাকি।’

জানা গেছে, পারিবারিক কারণে এবার কার্যনির্বাহী সদস্য পদে নির্বাচন করছেন মৌসুমী। তার মা আমেরিকায় আছেন, মাকে দেখতে খুব দ্রুত যেতে হবে। নির্বাচনের দিন থাকা হচ্ছে না তা এখনো নিশ্চিত নন তিনি।

এদিকে এবার নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করবেন পীরজাদা হারুন। দুজন সদস্য হলেন বি এইচ নিশান ও বজলুর রাশীদ চৌধুরী। আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান করা হয়েছে সোহানুর রহমান সোহানকে। মোহাম্মদ হোসেন জেমী ও মোহাম্মদ হোসেনকে আপিল বোর্ডের সদস্য করা হয়েছে।